স্ল্য়াব সিটি: এই শহরে নেই কোনও আইন

একবার ভেবে দেখুন তো আপনি যে শহরে থাকেন সেই শহরে যদি কোনও আইন না থাকত তাহলে কী হত? খুন, চুরি, ছিনতাই, ধর্ষণ রোজকার জীবনের অঙ্গ হয়ে উঠত। ভয়ে ভয়ে দিন কাটাতে হত। এই আতঙ্কের মাঝে কোনও ব্যক্তি কীভাবে সুস্থ জীবনযাপন করবেন সেটাই প্রশ্নচিহ্নের সামনে দাঁড়িয়ে যায়। এই ভয়ানক পরিস্থিতির কথা ভেবে গায়ে কাঁটা দিলেও আমেরিকার মতো দেশে রয়েছে এমনই এক শহর।

শহরটি অবস্থিত কলোরাডো মরুভূমির মাঝে

আমেরিকার সবচেয়ে ধনী রাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ায় রয়েছে স্ল্যাব সিটি (Slab City) নামের একটি  শহর। যেখানে নেই কোনও আইন, নেই বিশুদ্ধ পানীয় জল, নেই বিদ্যুৎ , এমনকি সেখানকার রাস্তার কোনও নাম নেই।

আমেরিকার গৃহহীনরা সাধারণত এই শহরে বসবাস করে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ওই এলাকাটিকে সামরিক ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করা হত। যুদ্ধ শেষে সেখানে পড়ে থাকে স্ক্রাব ও কংক্রিটের স্ল্যাব। এর থেকেই জায়গাটির নাম হয় স্ল্যাব সিটি। শীতকালে এই জায়গায় বেশি মানুষের সমাগম হয়। প্রায় ২ হাজার মানুষ শীতকালে এই শহরে বসবাস করেন। কিন্তু গ্রীষ্মকালে স্ল্যাব সিটি এলাকার তাপমাত্রা প্রায় ৫০ ডিগ্রিতে পৌঁছে যায়। সেকারণে বেশিরভাব গৃহহীনরা সেখান থেকে চলে যায়। তখন শহরের জনসংখ্যা দেড়শোর কাছাকাছি এসে দাঁড়ায়।

দারিদ্রতার কারণে খোলা আকাশের নিচে আসবাবপত্র রেখে বা ক্য়ারাভ্য়ানেই বসবাস করেন এখানকার বাসিন্দারা

আইকানুন না থাকলেও এখানে বিনোদনের যথেষ্ট ব্যবস্থা রয়েছে। স্ল্যাব সিটিতে রয়েছে একটি লাইব্রেরি। এছাড়াও রয়েছে একটি ক্যাফে, সামরিক ঘাঁটির সুইমিং পুলের অবশিষ্টাংশের মধ্যে তৈরি করা হয়েছে স্কেটপার্ক। এখানে দেখার মতো জায়গা হল স্যালভেশন পাহাড়। প্রায় সাড়ে ৩ তলা উঁচু পাহাড়েও গর্ত করে বসবাস করেন স্ল্যাব সিটির বাসিন্দারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.