কোথায় ফিকে হয়ে গেল মোদির গ্যারান্টি ?

“আব কি বার ৪০০ পার”। ভোট প্রচারের শুরুতে এমনই জানিয়ে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু কাজে দিল না মোদির গ্যারান্টি। শুধু তিনিই না যাবতীয় এক্সিট পোল এবং তাবড় তাবড় রাজনীতিবিদদেরও অনুমান ছিল গত দু’বারের মতো তৃতীয় বারও খুব সহজেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করবে BJP। কিন্তু কোথাও যেন অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসই ব্যর্থতার কারণ হয়ে দাঁড়াল। আরও একবার প্রমাণিত হল রাজনীতির মাটিতে কেউই অপরাজিত নয়। সব ঠিক থাকলে নায়ডু ও নীতিশের ভরসায় তৃতীয় বারের মতো সরকার গড়বেন নরেন্দ্র মোদি। তৃতীয় বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিয়ে ইতিহাসও গড়বেন। কিন্তু কোথাও গিয়ে কিছু প্রশ্ন থেকে যায়। আসুন, মোদি ম্যাজিকের এই ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধান করা যাক।

ধর্মের নামে রাজনীতিতে ক্লান্তি – রাজনীতির শুরু থেকেই BJP তাদের হিন্দুত্ববাদের জন্যই পরিচিত। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতিও কোথাও যেন মূল হাতিয়ার হয়ে দাঁড়িয়েছে। সমালোচকদের কথায়, তারই প্রতিফলন অযোধ্যায় রামমন্দির স্থাপন। কিন্তু এবার অযোধ্যাও খালি হাতে ফেরাল গেরুয়া শিবিরকে। এই হার দেখে মনে হয় মানুষ হয়তো এই ধরনের ধর্মীয় রাজনীতিতে ক্লান্ত। তাঁরা হয়ত এবার অন্য কিছু চান।

গ্রামীণ অসন্তোষ – রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, গ্রামীণ এলাকার মানুষের আস্থা হারানোর জেরেই এই ফলাফল। কৃষক আত্মহত্যা, বাড়তে থাকা অসমতা ও কর্মহীনতা কোথাও যেন ফিকে করে দিয়েছে মোদির গ্যারান্টিকে। এই আস্থা হারানোর কারণ।

আরও পড়ুন : অধরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা, মোদির গ্যারান্টি কি এখন নীতিশ-নায়ডুর হাতে ?

কংগ্রেসের উত্থান– BJP-র এই একাধিপত্য, একতরফা সিদ্ধান্ত নেওয়ার প্রবণতা কোথাও যেন কংগ্রেস ও বাকি বিরোধী শক্তিগুলিকে বাড়তি অক্সিজেন জুগিয়েছে। তারা বারবার এই ইস্য়ুগুলি সামনে এনেছে, যার ফল এখন সবার সামনে।

মোদির একাধিপত্যের প্রবণতা– নরেন্দ্র মোদির একাধিপত্যের প্রবণতাও একটি বড় কারণ। লোকসভায় বড় বড় সিদ্ধান্ত তিনি বিনা বিরোধেই নিয়েছেন। নোটবন্দি, লকডাউন, কৃষক আইন তার উদাহরণ। এই একনায়কতন্ত্র মনোভাবকে মানুষ হয়তো ভয় পেয়েছে।

আরও পড়ুন : লোকসভার তরুণ মুখ, প্রথমবার MP হলেন যাঁরা

গুজরাতে মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নরেন্দ্র মোদিকে কখনও ভাবতে হয়নি। জোটের সরকারে তিনি কীভাবে পরিচালনা করবেন, সেটাই দেখার। জোটের সরকার এসে কি মোদির একাধিপত্যকে কম করবে ? কেমন রদবদল হবে মন্ত্রিসভায় ? আগামী ৫ বছর নায়ডু ও নীতিশ থাকবে তো NDA-র সঙ্গে ? আপাতত সবটাই সময়ের অপেক্ষা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.