বাংলা থেকে কি শান্তনু-সুকান্তের জায়গা হবে মোদির মন্ত্রিসভায় ?

একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় আপাতত নীতিশ-নাইডুর মন জুগিয়ে চলতে হচ্ছে নরেন্দ্র মোদিকে। তাই এবার মন্ত্রীত্ব যাবে এই দুই শিবিরে। শপথ গ্রহণের আগে তা নিয়ে চর্চাও তুঙ্গে। তবে চা চক্রে আমন্ত্রণ ও উপস্থিতিকে কেন্দ্র করে মন্ত্রীত্ব বণ্টনের বিষয়টি এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে। বাংলায় সবুজ ঝড়ের কাছে মাথা নত করলেও ১২টি আসন পেয়েছে গেরুয়া শিবির। তাই বাংলা থেকে দু-একটি মন্ত্রীত্বের আশা রাখছে বঙ্গ BJP-র শীর্ষ নেতৃত্ব। সেক্ষেত্রে কারা পেতে পারেন মন্ত্রীর দায়িত্ব?

সূত্রের খবর, চা চক্রে বাংলা থেকে ফোন পেয়েছেন শান্তনু ঠাকুর,তাই তাঁর মন্ত্রী হওয়া সময়ের অপেক্ষা। শান্তনু বাদে বাংলা থেকে কাকে মন্ত্রী করা হবে, তা নিয়েই একাধিক জল্পনা শুরু হয়েছে। জানা গেছে, প্রাক্তন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছে চা চক্রের জন্য আমন্ত্রণ যায়নি। তবে তাঁর দিল্লিযাত্রা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের কথায়, মোদি ক্যাবিনেটে আইন বিভাগে অভিজিৎ বাবুর শিকে ছিঁড়তে পারে। তবে তা এই মুহূর্তে বলা কঠিন।

আরও পড়ুন : সন্ধ্যায় শপথ, বাজপেয়ি ও গান্ধিজিকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মোদির

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, বরাবরই গেরুয়া শিবিরের সেফ প্যাসেজ উত্তরবঙ্গ। শেষবার মন্ত্রীত্ব দিয়ে সেই কৃতজ্ঞতাও জানিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এবার ফল ভালো না হলেও পাশে থেকেছে সেই উত্তরবঙ্গ। তাই উত্তর ও দক্ষিণের সমতা বজায় রাখতে মন্ত্রীত্ব দেওয়া হতে পারে শান্তনু ও সুকান্তকে। তবে সুকান্ত মজুমদারের মন্ত্রী হওয়ার পথে বার্লা-টিগ্গাদের বিষয়টির উপরও নজর দিতে হবে।

এদিকে ফলাফলের পর থেকে দলের অন্দরে মতবিরোধ স্পষ্ট। সৌমিত্র খাঁর তৃণমূলের জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ও মন্ত্রীত্ব পাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশকেও একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। যদি কাঙ্খিত কৃপাদৃষ্টি না পান, তাহলে দল বদলাতেও পারেন সৌমিত্র। তবে সবই আপাতত জল্পনা। বাকিটা বলবে সময়।

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল-https://www.youtube.com/@NagarNama424

ফলো করুন ফেসবুক পেজ-https://www.facebook.com/nagarnamanews

Leave a Reply

Your email address will not be published.