৫১-এ মাস্টার ব্লাস্টার, ফিরে দেখা প্রথম জীবন

শচীন রমেশ তেন্ডুলকর, নামটার সঙ্গে পরিচিত প্রত্যেক ভারতীয়। শুধু ভারত নয় সমগ্র দুনিয়ার অগণিত ক্রিকেট ভক্তের কাছে তিনি ভগবান। তাঁর ঝুলিতেই রয়েছে টেস্ট ও একদিবসীয় ক্রিকেটে সর্বাধিক রান সংগ্রহ সহ একাধিক রেকর্ড।

২৪ এপ্রিল ১৯৭৩ সালে মুম্বইয়ে জন্মগ্রহণ শচীন তেন্ডুলকরের। প্রিয় সঙ্গীত পরিচালক শচীন দেব বর্মণের নাম অনুসারে নিজের ছেলের নাম রাখেন তাঁর বাবা।

ছোটো থেকেই ক্রিকেট ও টেনিসের প্রতি তাঁর আগ্রহ ছিল। আমেরিকান টেনিস তারকা জন ম্যাকেনরোকে নিজের হিরো মানতেন ছোট্ট শচিন।

দাদা অজিত তেন্ডুলকরের হাত ধরে ১৯৮৪ সালে ক্রিকেটে হাতেখড়ি। তাঁর সুবাদেই প্রথম সাক্ষাৎ কোচ রমাকান্ত আচরেকরের সঙ্গে, যার অবদান সর্ম্পকে বহুবার বলতে দেখা গেছে শচীনকে।

যদিও প্রথমদিনের সাক্ষাতে ক্রিকেটার হিসেবে দাগ কাটতে ব্যর্থ হয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার। দাদার অনুরোধে সুযোগ পান দ্বিতীয়বার, এরপর বাকিটা ইতিহাস।

স্কুল ক্রিকেটের পাশাপাশি ১৯৮৪ সালে ১১ বছর বয়স থেকেই ক্লাব ক্রিকেট খেলা শুরু করেন শচীন। কঙ্গ ক্রিকেট লিগে জন ব্রাইট ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে অভিষেক ঘটে তাঁর। ১৯৮৮ সালে সুযোগ পান ক্রিকেট ক্লাব অফ ইন্ডিয়ার হয়ে খেলার।

১৯৮৭ সালে ১৪ বছর বয়সে MRF পেস ফাউন্ডেশন মাদ্রাজে ফাস্ট বোলার হিসেবে ট্রেনিংয়ের জন্য যান তেন্ডুলকর, কিন্তু ট্রেনার অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি পেসার ডেনিস লিলি-কে প্রভাবিত করতে ব্যর্থ হন তিনি।

লিলি তাঁকে বোলিংয়ের পরিবর্তে ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করার পরামর্শ দেন।

১৯৮৮ সালে ইন্টার স্কুল টুর্নামেন্টে শারদাশ্রমের হয়ে খেলার সময় বিনোদ কাম্বলির সঙ্গে ব্যাটিংয়ে নেমে জুটিতে ৬৬৪ রান করেন শচীন।

৩২৬ রানে নট আউট থাকেন তেন্ডুলকর এবং পুরো টুর্নামেন্টে ১০০০-এর বেশি রান সংগ্রহ করেন। ২০০৬ সাল পর্যন্ত যেটি একটি রেকর্ড ছিল স্কুল ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ইতিহাসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.