শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে সব জানত তৃণমূল! বিস্ফোরক কুণাল

বুধবার সকালে সদ্য-তৃণমূলত্যাগী তাপস রায়ের সঙ্গে একমঞ্চে দেখা যায় কুণাল ঘোষকে (Kunal Ghosh), এরপর বেলা গড়াতেই দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয় তাঁকে। আর বিকেলেই এক সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসলেন এই বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা। তাঁর মন্তব্য রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় তোলার জন্য যথেষ্ট।

এদিন কুণাল ঘোষ এক সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির বিষয়ে আগে থেকেই অবগত ছিল তৃণমূল। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকেই দলের কাছে খবর ছিল পার্থ চট্টোপাধ্যায় বা তাঁর নাম করে কেউ কেউ টাকা তুলছেন। সেই কারণেই পরবর্তীতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে শিক্ষা দপ্তর দেওয়া হয়নি।

তিনি এদিন প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে আরও বলেন, এক তৃণমূল নেতা তাঁর কাছে এসেছিলেন। চাকরির জন্য ওই তৃণমূল নেতার থেকে ৭ লক্ষ টাকা দাবি করা হয়েছিল কিন্তু সে ৫ লক্ষ টাকা ব্যবস্থা করতে সক্ষম হন। বাকি টাকা মুকুবের জন্য চিরকুট লিখে দিতে কুণালের দ্বারস্থ হন ওই তৃণমূল নেতা। কুণাল ঘোষের দাবি সেই তৃণমূল নেতা বর্তমানে মন্ত্রীসভার সদস্য।

ঠিক যখন কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে ২৬ হাজার শিক্ষকের চাকরি বাতিল হয়েছে তখন কুণাল ঘোষের এই মন্তব্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। এখন প্রশ্ন উঠেছে তবে কি সবকিছু জেনে চুপ ছিল রাজ্যের শাসকদল? যদিও এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত তৃণমূল নেতৃত্বের তরফে কোনও পাল্টা প্রতিক্রিয়া আসেনি। তবে লোকসভা নির্বাচনের মুখে বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতার এই মন্তব্যে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়েছে ঘাসফুল শিবির।

Leave a Reply

Your email address will not be published.