তামিলনাড়ুতে ৫৭ জনের প্রাণ কাড়ল বিষ মদ, ক্রমেই বাড়ছে মৃত্যু

নিস্তব্ধ রাস্তাঘাট, যেন ছুঁচ পড়লেও আওয়াজ পাওয়া যাবে না। রোদ ঝলমলে আকাশও যেন ফিকে। লম্বা-চওড়া রাস্তায় ঢুকলেই মিলছে জটলা। মুখ কাচুমাচু করে কয়েকজনের গুনগুন বা অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকা বাচ্চাদের মুখ। কিন্তু কেউ এগিয়ে এসে কিচ্ছুটি জিজ্ঞাসা করছে না। শুধু এ ওর দিকে তাকাচ্ছে, আর নিজেদের মধ্যেই কিছু বলাবলি করছে। উত্তর তামিলনাড়ুর কাল্লাকুরিচি জেলার চিত্রটা আজ সকালে ঠিক এরকমই। কাকভোরে উঠে যেখানে ব্যস্ততায় ভর করে দিন চলা শুরু হয় সকলের সেখানে আজ সময় বাদে সবই থমকে।হবে নাই বা কেন, এক লহমায় যে বদলে গেছে তাদের জীবন। একাধিক পরিবার রাতারাতি হারিয়েছে একমাত্র উপার্জনকারীকে বা কোনও বাবা-মা হারিয়েছে তার সন্তানকে। বিষ মদ খেয়ে অকালে চলে গেছে কারও বাবা-দাদা বা স্বামী। প্রশাসনের গাফিলতি না কি সচেতনতার অভাব ? প্রশ্ন উঠছে করুণাপুরম গ্রামের অলিগলিতে। বুধবার তামিলনাড়ুর কাল্লাকুরিচি জেলায় বিষ মদ পান করে অসুস্থ হয়ে পড়ে একের পর এক মানুষ। এরপরই শুরু হয় মৃত্যু।

এপর্যন্ত বিষ মদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৭ জনের। ৫ মহিলা ও একজন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি-সহ অসুস্থ ১৫৬ জন। ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে কাল্লাকুরিচি জেলা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে, ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে মোহন কুমারমঙ্গলম মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে, ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে ভিল্লুপুরম মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে এবং ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে পুদুচেরির জওহরলাল ইনস্টিটিউট অফ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চে। জানা গেছে, মৃতদের মধ্যে ৩২ জন করুণাপুরমের। এই ঘটনার এপিসেন্টার এই গ্রামই। বাকিরা কাল্লাকুরিচি, মাধবাচেরি ও সেশাসমুদ্রম এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনার খবর প্রকাশ্যে আসতেই কড়া পদক্ষেপ করে তামিলনাড়ুর সরকার। কাল্লাকুরিচির জেলাশাসককে বদলি করা হয়, সাসপেন্ড করা হয় জেলা পুলিশ সুপারকে। এর সঙ্গেই একাধিক পুলিশ অফিসারকেও সাসপেন্ড করা হয়। ঘটনার তদন্তভার গেছে CB-CID-র কাঁধে। এপর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৭ জনকে।

শুক্রবার মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি বি গোকুলদাসের নেতৃত্বে একটি কমিটি তদন্ত শুরু করেছে এই ঘটনার। কমিটির সদস্যরা করুণাপুরমে ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে। পাশাপাশি সরকারি হাসপাতালে গিয়েও অসুস্থদের সঙ্গে কথা বলে। অসুস্থরা কেমন আছে তার খোঁজ নেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনিও হাসপাতালে গিয়ে দেখা করেন সকলের সঙ্গে। অবৈধ মদ ব্যবসায়ীদের মিথানল সরবরাহকারী শিবকুমার (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে হেপাজতে নিয়ে চলছে জিজ্ঞাসাবাদ।

Gargi Das

Gargi Das. Editor of Nagarnama.

Leave a Reply

Your email address will not be published.