স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হিনা, দেশে ক্রমবর্ধমান এই রোগ সম্পর্কে জানেন ?

সম্প্রতি একটি খবর বলিপাড়ায় উদ্বেগ তৈরি করেছে। জানা গেছে, অভিনেত্রী হিনা খান স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত। ৩৬ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী বর্তমানে চিকিৎসাধীন। এখন তাঁর কেমোথেরাপি চলছে। ইতিমধ্যেই অনেকে বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। যথাযথ চিকিৎসা পরিষেবার মধ্য দিয়ে তিনি হয়তো সুস্থ হয়ে উঠবেন, কিন্তু চিন্তা বাড়াচ্ছে দেশে ক্রমবর্ধমান এই রোগ। বিশেষত, দেশের মহিলাদের মধ্যে এই স্তন ক্যান্সার রোগটির বৃদ্ধি ঘটছে। কিন্তু কী এই রোগ ? কীভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব ? আসুন বিশদে জেনে নেওয়া যাক।

ভারতে বাড়তে থাকা ক্যান্সারগুলির মধ্যে অন্যতম হল স্তন ক্যান্সার। এটি এমন একটি রোগ যাতে স্তনের মধ্যে থাকা টিস্যুতে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি পেতে থাকে। মহিলা-পুরুষ নির্বিশেষে এই রোগ দেখা দিতে পারে। সঠিক সময়ে চিকিৎসা শুরু না করলে এই রোগটি আরও বড় আকার ধারণ করে ছড়িয়ে পড়তে পারে। সমগ্র পৃথিবীতে ২.৩ মিলিয়ন মহিলা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত। ক্যান্সার জার্নাল অনুযায়ী ১৯৯০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত মহিলাদের স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরিমাণ ৩৯.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) জানাচ্ছে, বর্তমানে ১৩.৬ শতাংশ রোগী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত এবং ২৬ শতাংশ মহিলারাই এই মারণ রোগের শিকার। ১ লক্ষ ৯২ হাজার রোগী এই রোগের বশবর্তী যা যথেষ্ট উদ্বেগজনক। উল্লেখ্য, স্তন ক্যান্সারে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আক্রান্ত হতে দেখা যাচ্ছে চল্লিশের কম বয়সী মহিলাদের।

স্তন ক্যান্সারের কারণ

গ্লোবাল ওনকোলজির একটি গবেষণায় স্তন ক্যান্সারের কিছু কারণ উঠে এসেছে। যার মধ্যে অনিয়মিত জীবনযাপনকে বিশেষভাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। বিশেষত দেরীতে গর্ভধারণ করা, অতিরিক্ত ফ্যাট যুক্ত খাবার খাওয়া এবং বেশিক্ষণ বসে থাকার ফলে হতে পারে এই মারণ রোগ।

আবার জিনগত কারণেও অনেক সময় এই রোগ হয়ে থাকে। জিনগত কারণে যেসব মহিলাদের স্তন ক্যান্সার হয়, তাদের মধ্যে BRCA1 ও BRCA2 জিন মিউটেশন লক্ষ্য করা গেছে। তবে এটা ভ্রান্ত ধারণা যে কোনও পরিবারে ক্যান্সারে আক্রান্ত না থাকলে সেখানে কেউ এই রোগের শিকার হবে না। সবটাই নির্ভর করে জীবনযাপনের উপর।

কীভাবে আটকাবেন

তামাক ও অ্যালকোহল থেকে সম্পূর্ণভাবে বিরত থাকতে হবে। অনেক বেশি পরিমাণে শারীরিক ক্রিয়া-কলাপ করতে হবে। ওজন কম রাখতে হবে। শারীরিকভাবে সক্রিয় ও ফিট ব্যক্তির আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। নিয়মিত চেক-আপ এবং সতর্ক থাকলে এই রোগ থেকে বাঁচা যেতে পারে।

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল-https://www.youtube.com/@NagarNama424

ফলো করুন ফেসবুক পেজ-https://www.facebook.com/nagarnamanews

Leave a Reply

Your email address will not be published.