সুস্থতার চাবিকাঠি বাগান বিন্যাসে, রইল খুঁটিনাটি

বাড়ি ফেরার পথে নার্সারিতে চোখ আটকে গিয়ে দু’মিনিট ঢুঁ মারার পর মনে হল এই ছোট্ট জারবেরা গাছটি আজ থেকে আমার ছাদ বাগানের নতুন সদস্য হলে কেমন হয় ? আচ্ছা, আপনারও কি নিত্যদিনের সঙ্গী বাগান ? তাহলে কিন্তু অজান্তেই নানা ধরনের উপকার পাচ্ছেন। কীভাবে ? আসুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ এনভায়রনমেন্টাল রিসার্চ অ্য়ান্ড পাবলিক হেল্থের একটি গবেষণায় দেখা গেছে, বাগান সাজানোর মাধ্য়মে আমাদের মস্তিষ্কের ব্যায়াম হয়। তাই শুধুমাত্র আউটডোর বা ইনডোর গার্ডেনিং নয়, কিচেন গার্ডেনিংও মনে আনে প্রবল প্রশান্তি। 

অনেক সময় গাছে ফোটা কোনও ফুল বা সবজির ফলন মন সতেজ করে দেয়। মন ভালো রাখে। দুশ্চিন্তা কমায়। 

গুরুগ্রাম আর্টেমিস হাসপাতালের চিকিৎসক ডক্টর পি ভেঙ্কটাকৃষ্ণণ জানাচ্ছেন, যারা প্রতিদিন বাগান পরিচর্চা করেন তারা ক্রমেই বিষন্নতা কম অনুভব করেন। এটি আমাদের শরীরে এনডরফিন হরমোন নিঃসরণে সাহায্য করে, যার জন্য আমরা তৃপ্তি ও স্বাচ্ছন্দ্য অনুভব করে থাকি।

সূর্যালোকে বাগানে বেশ কিছুক্ষণ থাকলে ভিটামিন D-র ঘাটতি যেমন পূরণ হয়, সেভাবেই ক্যালশিয়ামের জেরে হাড় শক্ত হয় এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

যারা অপেক্ষাকৃত হাল্কা ব্যায়াম পছন্দ করেন, তাদের জন্য গার্ডেনিং উপযুক্ত। কারণ এর জেরে অনেকটা ক্যালোরি বার্ন হয়। এমনকি গাছের টব সরালে, মাটি বইলে বা ঘাস কাটার যন্ত্র দিয়ে বাগান পরিষ্কার করলে শরীরের একাধিক হাল্কা ব্য়ায়ামও হয়ে যায়।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে গার্ডেনিং করলে স্থূলত্ব কমে। কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হার্টকে সুস্থ রাখে গার্ডেনিং।

এভাবেই আপনার যত্নে ও ভালোবাসায় ধীরে ধীরে বেড়ে ওঠা গাছেদের দেখভাল করার দায়িত্ব নিন। শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকুন ও সতেজ থাকুন।

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল-https://www.youtube.com/@NagarNama424

ফলো করুন ফেসবুক পেজ-https://www.facebook.com/nagarnamanews

ফলো করুন X হ্যান্ডেলে-https://twitter.com/nagarnama

Leave a Reply

Your email address will not be published.